বৃত্ত'র সাথে মেঘালয় ভ্রমণ (জুলাই)

৪-৯ জুলাই, ২০২৪ | মেঘালয়, ইন্ডিয়া

বৃত্ত'র সাথে মেঘালয় ভ্রমণ (জুলাই)

বৃত্ত'র সাথে মেঘালয় ভ্রমণ (জুলাই)

এটি Britto Travel & Tourism (বৃত্ত) এর একটি বৈদেশিক ইভেন্ট।

মেঘালয় (ইংরেজী Meghalaya) উত্তর-পূর্ব ভারতের ছবির মত সুন্দর একটি রাজ্য যার রাজধানী শিলং। মেঘের জন্য যেখানে চারপাশে দেখা যায় না কিছু। এর মধ্যেও যা দেখবেন পাহাড়ের উপর থেকে মাথা ঘুরিয়ে দেয়ার জন্য যাথেষ্ট। পায়ের নিচ দিয়ে দেখবেন মেঘ ভেসে বেড়াচ্ছে। দূর থেকে দেখলে কুয়াশা মনে হতে পারে, আসলে সব মেঘ।মাঝেমধ্যে এমন হয় কিছু দেখা যায়না, হঠাৎ করে সব ফুঁড়ে উঠে। এই অবস্হা অবশ্য শিলংয়েও হতে পারে। এই কারণেই এই রাজ্যের নাম মেঘালয়।

ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৪,৮৬৯ ফুট উপরে বিশ্বের সর্বাধিক বৃষ্টিপাত এর স্থান চেরাপুঞ্জি। অসংখ্য পাইন অরণ্য, জলপ্রপাত ও পার্বত্য জলধারার সমারোহের স্থান চেরাপুঞ্জি। বর্ষায় ভ্রমণের উপযুক্ত সময় ধরা হয়। প্রচুর ব্রিটিশ ধাঁচে নির্মিত কান্ট্রিহাউজ দেখতে পাওয়া যায় শিলং এ। কমলার উৎপাদন ক্ষেত্রও বলা যায় এ অঞ্চলকে। এছাড়াও অসংখ্য পান-সুপারির গাছ রয়েছে।

মেঘালয় নামের আক্ষরিক অর্থ হল “মেঘের আলয়”। ব্রিটিশরা এই স্থানের প্রেমে পড়ে, একে “প্রাচ্যের স্কটল্যান্ড” বলে আখ্যা দেন।

ভ্রমণঃ ৪-৯ জুলাই, ২০২৪।

খরচঃ ১৭,৯৯৯/- জনপ্রতি (৩ জন শেয়ারিং)
কাপল: ১৮,৯৯৯/- জনপ্রতি (২ জন শেয়ারিং)

*** এসি বাসের জন্য (বিজনেস ক্লাস) জনপ্রতি ১৬০০/- করে প্যাকেজের সাথে যুক্ত হবে।

ভ্রমণ স্থানঃ
1. Mawlynnong Village
2. Living Root Bridge
3. Prut Falls
4. Umium Lake
5. Mawsmai Nongthymmai Eco-Park
6. Mawsmi Cave
7. Wahkaba Falls
8. Seven Sister Falls
9. Nohkalikai Falls
10. Mawsynram
11. Ward's Lake
12. Lady Hydari Park
13. Borhill Falls
14. Umkrim Falls
15. Laitlum

*** সময় ও সুযোগ থাকলে আরো কিছু দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখবো।
*** পরিবেশ ও পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে প্ল্যান কিছুটা পরিবর্তনও হতে পারে।

যে সকল সেবাসমূহ প্যাকেজে থাকছেঃ
১। ঢাকা-সিলেট-ঢাকা বাস (নন এসি),
২। সিলেট-তামাবিল বর্ডার-সিলেট টেম্পু/মাইক্রোবাস,
৩। ডাউকি বর্ডার-শিলং-ডাউকি বর্ডার রিজার্ভ জীপ,
৪। সকল ধরনের লোকাল ট্রান্সপোর্ট,
৫। প্রতিদিন তিনবেলা খাবার,
৬। লোকাল সাইটসিয়িং,
৭। সকল এন্ট্রি ফি,
৮। ফ্যামিলি-স্ট্যান্ডার্ড মানের হোটেলে তিনরাত থাকা,
৯। গাইডেন্স।

প্যাকেজে যা যা অন্তর্ভুক্ত থাকবেনাঃ
১। ভিসা ফি,
২। ট্রাভেল ট্যাক্স,
৩। বর্ডারে যেকোন টিপস (যাওয়া-আসা),
৪। ব্যক্তিগত খরচ,
৫। ব্যক্তিগত ঔষধ।

ভ্রমণ পরিকল্পনাঃ

০০ দিনঃ
রাত ১১ টার বাসে সায়দাবাদ বাস কাউন্টার থেকে সিলেট এর উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু।

০১ দিনঃ
সকালে সিলেট পৌঁছে সকালের নাস্তা করবো। নাস্তা করে লেগুনা / মাইক্রোবাসে করে তামাবিল বর্ডারের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু। বর্ডারের সকল ফর্মালিটিজ শেষ করে চেরাপুঞ্জির উদ্দেশ্যে আমাদের যাত্রা শুরু হবে জীপে করে।

যাত্রার মাঝপথে আমরা চলে যাবো এশিয়ার সবচেয়ে সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন মাউলিনং গ্রাম। এখানেই আমরা দুপুরের খাবার সেরে নিবো। পথে উমক্রেম ও বড়হিল ফলস দেখে যাবো। তারপর চলে যাবো আরেক আশ্চর্য স্থান লিভিং রুট ব্রীজ এ। প্রকৃতি তার আপন খেয়ালে তৈরী করেছে এক অসাধারন ব্রীজ। লিভিং রুট ব্রীজ দেখে সোজা চলে যাবো চেরাপুঞ্জি শহরে। পৌঁছাতে প্রায় সন্ধ্যা হয়ে যাবে। রাতে হোটেলে রাত্রি যাপন। হোটেলে রাতের খাবার সেরে নিবো।

০২ দিনঃ
খুব সকালেই নাস্তা সেরে নির্ধারিত জিপে করে আমরা চেরাপুঞ্জির ঝর্না গুলো ঘুরে দেখবো। দুপুরে ইকো পার্ক এ লাঞ্চ করবো। এরপর শিলং এর জন্য রওয়ানা হবো। রাতে শিলং এ ডিনার করে হোটেলে রাত্রি যাপন।

০৩ দিনঃ
সকালে নাস্তা সেরে আমরা শিলং এর আশেপাশের বিভিন্ন পর্যটন স্থানগুলো ঘুরে দেখবো। দুপুরে সুবিধামত কোন হোটেলে লাঞ্চ করে ফেলবো। বিকেলে কিছুটা সময় নিজেদের মত কাটাবো। রাতে শিলং এ রাতের খাবার খেয়ে নিবো। রাতে হোটেলে রাত্রি যাপন।

০৪ দিনঃ
সকাল বেলা নাস্তা সেরে বর্ডারের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু। মাঝপথে ক্রাংসুরি ওয়াটার ফলস দেখে নিবো। বর্ডারের সকল কাজ শেষ করে সিলেটের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু। সিলেট পৌঁছে রাতের খাবার সেরে নিবো। রাতের বাসে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু।

০৫ দিনঃ
ইনশা আল্লাহ সকাল ৬ঃ৩০ এর মধ্যে আমরা ঢাকায় পৌঁছে যাবো।

হোটেলঃ হোটেল রেইনবো / হোটেল মনসুন / উমফলিউ / সিমিলার।

বাসঃ হানিফ / শ্যামলি / সিমিলার।

খাবার মেন্যুঃ

সকালের নাস্তাঃ
১ম দিনঃ ডিম খিচুরী/ পরটা, সবজি/ডাল, চা।
২য় দিনঃ পরটা, এগ অমলেট/সবজি, চা।
৩য় দিনঃ লুচি, ছোলাবাটরা, চা।
৪র্থ দিনঃ লুচি/ আলু পরটা, মটর/সবজি, ডিম, চা/ কফি।

দুপুরের খাবারঃ
১ম দিনঃ ভাত, ডাল, সবজি, আলু ভাজা, মুরগি/ফিশ/ডিম, চাটনি, সালাদ।
২য় দিনঃ ভাত, ডাল, সবজি, আলু ভাজা, মুরগি/ডিম, সালাদ।
৩য় দিনঃ ভাত, ডাল, সবজি, আলু ভাজা, মুরগি/ডিম, সালাদ।
৪র্থ দিনঃ ভাত, ডাল, মুরগি/ডিম/মাছ, সালাদ অথবা চিকেন বিরিয়ানি।

রাতের খাবারঃ
১ম দিনঃ ভাত, সবজি, ডাল, বীফ/চিকেন।
২য় দিনঃ কে এফ সি কম্বো ডিনার প্যাকেজ।
৩য় দিনঃ ভাত, ডাল, সবজি, আলু ভাজা, মুরগি/ডিম, সালাদ।
৪র্থ দিনঃ ভাত, ডাল, মুরগি/ডিম/মাছ, সালাদ অথবা চিকেন বিরিয়ানি।

কনফার্ম করার নিয়মঃ

১. আসন খালি থাকা সাপেক্ষে ২০ জুনের মধ্যে ১০,০০০/- টাকা (অফেরতযোগ্য) অগ্রীম দিয়ে নিজ নিজ আসন কনফার্ম করতে হবে। বাকি টাকা ট্যুরের ৫ দিন আগে পেমেন্ট করতে হবে।

২. টাকা পাঠানোর নিয়মঃ আগ্রহীরা ১০,২০০/= টাকা (01911-254397/ 01685-309156) পার্সোনাল নম্বরে বিকাশ করে আপনার যাত্রা কনফার্ম করতে পারবেন। bKash করে সাথে সাথে ঐ নম্বরে ফোন করে নিজের নাম এবং Transaction Id জানাবার পরেই আপনার আসন কনফার্ম হবে। অথবা ব্যাংক বা সরাসরি দেখা করে টাকা দিতে পারেন।

(বিঃ দ্রঃ এডভান্স এর টাকা দিয়ে আপনার সিট কনফার্ম হবার পর, আপনি যদি কোন কারণে না যেতে পারেন সেক্ষেত্রে আপনার রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে অন্য কেউ কনফার্ম করলে অবশ্যই আপনার টাকা ফেরত দিয়ে দেওয়া হবে। অন্যথায় এডভান্স এর টাকা অফেরতযোগ্য।)

যাওয়ার পুর্বে যেগুলো নিতে হবেঃ
১। প্রথমে প্রয়োজনীয় সকল ডকুমেন্টস চেক করে নিতে হবে। (পাসপোর্ট, জাতীয় পরিচয়পত্র সহ সকল প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ৩-৪ কপি করে নিতে হবে)।
২। ছাতা, মোবাইল/ ক্যামেরার রেইন কাভার।

যে বিষয়গুলো অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবেঃ
১। স্থানিয়দের সাথে কোনভাবেই তর্কে যাওয়া যাবে না।
২। ভ্রমনের সময় কোন ধরনের মাদকদ্রব্য বহন করা যাবে না।
৩। মজা আমরা অবশ্যই করব তবে সেটা যেন সীমা অতিক্রম না করে। কোন ধরনের অশ্লীলতা বরদাস্ত করা হবে না।
৪। পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে যেকোন সিদ্ধান্ত সবার সাথে আলোচনা সাপেক্ষে নেওয়া হবে এবং সেক্ষেত্রে এডমিনের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হিসেবে গন্য হবে।
৫। যত্রতত্র ময়লা না ফেলে একটা নির্দিস্ট স্থানে ফেলব।
৬। সর্বোপরি সবার সহযোগিতা ও আন্তরিকতায় ট্যুর সুন্দর ও সাফল্যমন্ডিত করা সম্ভব আশা করি সবাই করবেন।

ভিসা সংক্রান্ত তথ্যঃ
শিলং ও চেরাপুঞ্জি ভ্রমনের জন্য আপনাকে অবশ্যই ডাউকি বর্ডার দিয়ে ভিসা করা থাকতে হবে। যাদের এই পোর্ট এ ভিসা করা আছে তারা দ্রুত বুকিং মানি পাঠিয়ে আপনার প্যাকেজটি কনফার্ম করে ফেলুন। আর যাদের ভিসা করা নাই তাদের ভিসা প্রক্রিয়ার খেত্রে আমরা সহযোগীতা করবো।

যাদের ভিসা অন্য পোর্ট দিয়ে করা আছে তাদের ডাউকি পোর্ট এড করে দিতে পারবো, সেক্ষেত্রে খরচ লাগবে। পোর্ট এড করতে চাইলে দ্রুত আমাদের ফোন করুন।

ভারতীয় ভিসা করার জন্য যেসকল কাগজপত্র লাগবেঃ
১। মিনিমাম ৬ মাস মেয়াদি পাসপোর্ট
২। বর্তমান বাসার বিদ্যুৎ বিলের কপি/গ্যাস বিলের কপি/পানি বিলের কপি/টেলিফোন বিলের কপি
৩। ব্যাংক স্টেটমেন্ট (মিনিমাম ২০০০০ টাকা থাকতে হবে)। ব্যাংক একাউন্ট না থাকলে ডলার এন্ড্রোসমেন্ট (১৫০ ডলার)
৪। চাকুরীজিবীদের খেত্রে NOC, ব্যাবসায়ীদের খেত্রে ট্রেড লাইসেন্স, স্টুডেন্টদের খেত্রে স্টুডেন্ট আইডি কার্ড, সরকারি কর্মকর্তার খেতে GO.
৫। জাতীয় পরিচয়পত্র কিংবা জন্মনিবন্ধনের কপি।
৬। ২*২ সাইজের ছবি।
৭। পুরাতন পাসপোর্ট থাকলে সেটাও সাথে জমা দিতে হবে।
৮। ভিসা আবেদন ফর্ম।

Britto Travel & Tourism (বৃত্ত)
Room# 317 (2nd floor)
Sat Masjid Super Market,
Mohammadpur Bus Stand, Dhaka - 1207.
Email : brittotourism@gmail.com
Website : www.brittotourism.com

Facebook Page : https://www.facebook.com/pg/BrittoTourism

Facebook Group : https://www.facebook.com/groups/BrittoTourism

প্রয়োজনে যোগাযোগঃ
1. Tawhidul Islam Shawon: 01811 444438,
2. Mehedi Hassan Shuvo: 01685 309156.



Tour Gallery